চট্টগ্রাম, , সোমবার, ১৯ আগস্ট ২০১৯

ক্রমাগত বর্ষণের আতংকে বাঘাইছড়ি বন্যাকবলীত এলাকার মানুষ!

প্রকাশ: ২০১৯-০৭-১২ ১৯:২৩:১২ || আপডেট: ২০১৯-০৭-১২ ১৯:২৩:১২

জগৎ দাশ বাঘাইছড়ি (রাঙামাটি) প্রতিনিধি রাঙামাটির বাঘাইছড়িতে টানা ৬ দিনের বৃষ্টির ফলে মিজুরাম রাজ্যর উজান হতে নেমে আসা পাহাড়ি ঢলে কাচালং নদীর পরিপূর্ণতা ফিরে এসেছে।

দীর্ঘ সময় অতিক্রম করে নদীর নাব্যতা সংকট কাটিয়ে উঠলে জনমনে স্বঃস্তি ফিরে আসলে ও এদিকে বিপত্তি ঘটে টানা বর্ষণে।

জানাযায়,ক্রমাগত মুষলধারী বর্ষণের ফলে উপজেলার নিম্নঞ্চলের বিভিন্ন পুকুর,ডোবা,ছড়া ধন্যজমি সহ ডুবে যাচ্ছে বসতভিটা। টানা ৬দিনের বৃষ্টিতে গৃহবাড়ি ছাড়তে হয়েছে উপজেলার পৌর বাসিন্দা সহ প্রায় ৮ ইউনিয়নের ৩৭৮ পরিবারকে। উপজেলা প্রসাশনের মাইকিংয়ে বলা হয়েছে বন্যাকবলীতরা যাতে ঝুঁকিপূর্ণ ও বন্যা কবলিত ঘরবাড়ি ছেরে উপজেলা প্রসাশনের আশ্রয় কেন্দ্রে আশ্রয় নিতে। মঙ্গলবার দিনব্যাপী মাইকিং করা হয়েছে উপজেলা প্রসাশনের পক্ষ হতে।

জনপ্রতিনিধি ও উপজেলা প্রসাশনের হিসাব মতে প্রায় ৫ শত পরিবার পানি বন্ধি হয়েছে।পানি বন্ধি কেউ কেউ উচু এলাকায় বসবাস কারী নিকট আত্ত্বিয়র বাসায় আশ্রয় নিয়েছেন।অপর দিকে বিভিন্ন আশ্রয় কেন্দ্রে প্রায় ৩৮০ পরিবার আশ্রয় কেন্দ্রে আশ্রয় নেয় বুধবার সন্ধ্যা থেকে রাত অবদি পর্যন্ত ।

উপজেলা প্রসাশন বৃহস্প্রতিবার (১১ জুলাই) বন্যা আশ্রয় কেন্দ্র পরিদর্শন করে ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ করেন।

বৃহস্প্রতিবার সকাল থেকে হালকা বৃষ্টিপাত হলে ও দুপুরের পর থেকে বৃষ্টি বন্ধ হয়। ফলে বৈরী আবহাওয়া কেটে যাবে ভেবে কিছুটা স্বস্তি আসে জনমনে।দিন কাটতে না কাটতে শুরু হয় রাত ৮ টা থেকে মুষলধারী হালকা বৃষ্টি এতে ভিতস্বস্ত হয় উপজেলাবাসী। টানা ৬দিনের বৃষ্টিতে উপজেলার বিভিন্ন নিম্নাঞ্চল পানিতে তলিয়ে যায়।

উপজেলার সাথে ৮ ইউনিয়ন সহ পৌর এলাকার রাস্তা ঘাট পানিতে তলিয়ে যাওয়ার ফলে বন্ধ হয়ে গেছে অভ্যন্তরিন সড়ক যোগাযোগ ব্যবস্থা।

এদিকে বৃহস্প্রতিবার ও শুক্রবার থেকে বন্যা পরিস্থিতি কিছুটা স্বাভাবিক মনে হলে ও ক্রমাগত হালকা মাঝারী ধরনের বৃষ্টিপাতে জনমনে আতংক ভয়ভীতি দেখা দিয়েছে। যদি হালকা মাঝারি বৃষ্টিপাতের পট পরিবর্তন ঘটে তবে পানিতে তলিয়ে যেতে পারে কয়েক হাজার পরিবার।ক্রমাগত বৃষ্টিপাত বন্দে অনেকে মহান সৃষ্টিকর্তার দোয়া কামনা করেছেন।এবারের বন্যা কবলিতদের সার্বিক ভাবে সাহায্য সহোযোগীতার কৃতিত্ব অর্জন করেছে স্থানীয় সেচ্ছাসেবী সংগঠণ রেড ক্রিসেন্ট ও হৃদয়ে বাঘাইছড়ি নেতৃবিন্দুরা। এদিকে শুক্রবার ১২ জুলাই বাঘাইছড়ি বন্যা কবলিত এলাকা পরিদর্শনে আসেন রাঙামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান বৃষকেতু চাহমা।

তিনি বন্যা কবলিত এলাকা পরিদর্শন শেষে ৩৭৮ পরিবারের মাঝে বিভিন্ন আশ্রয় কেন্দ্র নগদ অর্থ ওরস্যালাইন,ডাইরিয়া মুক্ত ও পানি বিষুদ্ধকরণ টেবলেট বিতরণ করেছেন।কানায় কানায় পরিপূর্ণ বাঘাইছড়ির কাচালং নদীর আশ পাশের ছড়া, ডোবা,নালা, ধান্য জমি। ক্রমাগত এই বর্ষনের মাত্রা বেড়ে গেলে উপজেলার সড়ক অবকাঠামো সহ অসংখ্য ক্ষতির মুখোমুখি হবে জনগন।

এদিকে স্থানিয় প্রসাশন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আহসান হাবিব জিতু বলেন,বন্যা মোকাবেলায় সব ধরনের প্রস্তুতি রাখা হয়েছে।তবে নাদীর পানি কিছু সময় কম গিয়ে ও বৃষ্টিপাতের কারনে আবার বেড়ে যাচ্ছে।ক্রমাগত বৃষ্টিপাত বন্ধ হলে অতিরিক্ত বন্যার ঝুঁকি কমে আসবে।স্বাভাবিব জীবনে ফিরে যেতে পারবে বাঘাইছড়িবাসী।

Leave a Reply

ক্যালেন্ডার এবং আর্কাইভ

July 2019
S M T W T F S
« Jun   Aug »
 123456
78910111213
14151617181920
21222324252627
28293031  
%d bloggers like this: