চট্টগ্রাম, , সোমবার, ২২ জুলাই ২০১৯

বাঘাইছড়িতে জেএসএস( মূল)দলের এক চাদাঁবাজ আটক

প্রকাশ: ২০১৯-০৬-১৯ ১৫:১০:২৫ || আপডেট: ২০১৯-০৬-১৯ ১৫:১০:২৫

জগৎ দাশ, বাঘাইছড়ি(রাঙামাটি) প্রতিনিধিঃ রাঙ্গামাটি জেলার বাঘাইছড়ি উপজেলাধীন সারোয়াতলী ইউনিয়নের মইষপুজ্জ্যা এলাকায় ১৯ জুন ২০১৯ (বুধবার) ভোর রাতে একটি অভিযান পরিচালনা করে খাগড়াছড়ি সেনা রিজিয়নের নেতৃত্বাধীন লংগদু জোনের একটি অভিযান দল। জেএসএস (মূল)এর নেতৃস্থানীয় কয়েকজন সন্ত্রাসীরা উক্ত এলাকায় অবৈধভাবে চাঁদা উত্তোলন করছে মর্মে সংবাদ পাওয়া যায়।

উক্ত সংবাদের ভিত্তিতে লংগদু সেনা জোনের একটি অভিযান দল দ্রুত ঘটনাস্থলে গিয়ে ব্যাপক তল্লাশী কার্যক্রম শুরু করে।

সেনাবাহিনীর উপস্থিতি টের পেয়ে সন্ত্রাসীরা পালিয়ে যেতে উদ্যত হয়। তবে গহীণ অরণ্যের সুযোগে কয়েকজন সন্ত্রাসী পালিয়ে যেতে সক্ষম হলেও ঘটনাস্থল থেকে কিরণ বিকাশ চাকমা (৫২) পিতাঃ আনন্দ মোহন চাকমা, মইষপুজ্জ্যা পাড়া,উপজেলার সারোয়াতলী ইউনিয়ন, থেকে আটক করা হয়।

আটককৃত কিরণ বিকাশকে ব্যাপক জিজ্ঞাসাবাদের ফলে পরবর্তীতে তার বাসস্থান হতে একটি দেশী তৈরী বন্দুক, ০৪ টি মোবাইল ফোন ও চাঁদা গ্রহণের রশীদ উদ্ধার করা হয়।

আটককৃত চাঁদাবাজ কিরণ বিকাশ চাকমা জেএসএস (মূল) দলের একজন সক্রিয় সদস্য এবং ১৮ মার্চ ২০১৯ তারিখের বাঘাইছড়ি উপজেলা নির্বাচন পরর্বতী ৮ হত্যাকন্ডের অন্যতম পরিকল্পনাকারী বলে প্রাথমিক ভাবে জানা যায়।

ধৃত কিরণ বিকাশ চাকমা দীর্ঘদিন ধরে উক্ত এলাকার সাধারণ জনগণকে ভয়ভীতি প্রদর্শন পূর্বক চাঁদা আদায় করে আসছিল। চিহ্নিত এই চাঁদাবাজ গ্রেফতারের সংবাদে স্থানীয়দের মধ্যে স্বস্তি লক্ষ্য করা যায় এবং অবৈধ চাঁদাবাজ ও সন্ত্রাসীদের গ্রেফতারে সেনাবাহিনীর চলমান অভিযান অব্যাহত রাখারও অনুরোধ জানায় তারা।

নিরাপত্তা বাহিনীর পক্ষ থেকে জানানো হয়, পাহাড়ের শান্তি প্রতিষ্ঠায় অবৈধ অস্ত্র উদ্ধার এবং চিহ্নিত সন্ত্রাসী ও চাঁদাবাজদের গ্রেফতারে অভিযান চলমান থাকবে। এব্যাপারে স্থানীয় জনসাধারণের সহযোগিতা চায় সেনাবাহিনী।

এব্যাপারে বাঘাইছড়ি থানা ইনচার্জ (ওসি)এম এ মন্জুর ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন,সেনাবাহিনীর সাথে আমার কথা হয়েছে একজন চাঁদাবাজ কে আটক করেছেন। তবে একনো পর্যন্ত আসামিকে থানায় হাজির করা হয়নি।

Leave a Reply

ক্যালেন্ডার এবং আর্কাইভ

June 2019
S M T W T F S
« May   Jul »
 1
2345678
9101112131415
16171819202122
23242526272829
30  
%d bloggers like this: