চট্টগ্রাম, , শনিবার, ১৯ জানুয়ারী ২০১৯

উন্নয়ন এবং সমৃদ্ধির সুষম বণ্টন নিশ্চিতকল্পে রাজনৈতিক দলগুলোর জন্য ইশতেহার প্রস্তাবনা বাংলাদেশ জনকল্যাণ ফোরামের

প্রকাশ: ২০১৮-১২-১০ ১৫:২৮:৪৮ || আপডেট: ২০১৮-১২-১০ ১৫:৩৭:৩২

দেশের একাদশ জাতীয় নির্বাচন সন্নিকটে। বিভিন্ন জোট দল এর কোন্দল , আসন ভাগাভাগির নির্বাচন অত্যাসন্ন। গত ১০ টি নির্বাচনে কমপক্ষে ২২ হাজার দুর্নীতিগ্রস্ত রাজনীতিবিদ ও জন প্রতিনিধি সম্পদের পাহাড় গড়েছেন। আঙ্গুল ফুলে কলা গাছ হয়েছে। গ্রাম থেকে উঠে এসেছেন গুলশান, বনানী, বারিধারা, খুলশির মত অভিজাত এলাকায়। প্রতিটি নির্বাচন যেন ভাগ্য গড়ার উৎসবমুখর রক্তাক্ত হোলি খেলা। এবারও ক্ষমতায় যাবেন তেমন অনেকে। এবারও লাশ পরতে শুরু হয়েছে। অপর বড় রাজনৈতিক শক্তির জামাত নির্ভরতা চোখে পড়ার মত। মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের শক্তির বিরুদ্ধে স্বৈরাচার ও বঙ্গবন্ধুর বিরুদ্ধচারীদের নিয়ে নির্বাচন করার অভিযোগ আছে।

দেশে ১১ তম জাতীয় নির্বাচন অতীব গুরুত্বপূর্ণ বটে। নিজেকে নিজে প্রশ্ন করুন, নিজের আত্মার সাথে কথা বলুন অতীব নীরবে অতি গোপনে আপনার ১ টি ভোট এই অবস্থার পরিবর্তন করতে পারে। আপনার সুচিন্তিত ভোটের মাধ্যমে জনপ্রতিনিধি আপনার জন্য একটি কাঙ্ক্ষিত সমাজ , ন্যায় ভিত্তিক সমাজ প্রতিষ্ঠার জন্য কাজ করতে পারবে। মানবকে ভোট দিবেন দানবকে নয়। সমাজের শত্রুদের নয় , আপনার সম্পদ লুণ্ঠনকারীদের নয়, খুন খারাবি , ধর্ষণের অভিযোগে অভিযুক্তদের নয়। জাতীয় জীবনে একটি নির্বাচন একটি নিরব পরিবর্তনের দিন । আপনিই পারেন আপনার কাঙ্ক্ষিত পরিবর্তন আনতে নতুন প্রজন্মের জন্য ন্যায্য সমাজ গড়তে আপনার বিবেচনার ভাল মানুষকে ভোট দিয়ে।

এবারের নির্বাচনকে সামনে রেখে সকল রাজনৈতিকদলকে জনগণের চাহিদা পূরণের জন্য নিম্নলিখিত কর্মসূচী তাদের নির্বাচনী ইশতেহারে সংযুক্ত করার জন্য জোর দাবী জানাচ্ছি।

অধ্যাপক সৈয়দ আহসানুল আলম
প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান ও আহ্বায়ক
বাংলাদেশ জনকল্যাণ ফোরাম

২৫ দফা দাবী হল-
১. মাথাপিছু গড় আয় ১৭৫২ ডলার নয়, প্রান্তিক মানুষদের মাথাপিছু প্রকৃত আয় যেন ১৭৫২ ডলার হয় তার জন্য সর্বনিম্ন মজুরী বৃদ্ধি করতে হবে।
২. ২৭ লক্ষ শিক্ষিত বেকারের জন্য কর্মসংস্থান সৃষ্টি করতে জাতীয় উন্নয়ন কৌশল পুনঃবিন্যাস করতে হবে।
৩. সকল নাগরিকের জন্য ঘুষ ছাড়া ব্যাংক লোন প্রাপ্তির ক্ষেত্রে সমসুযোগ নিশ্চিত করতে হবে।
৪. ব্যাংক সমূহের আমানতের ৪০% বৃহৎ ঋণ, ৩০% ক্ষুদ্র ও মাঝারি ঋণ ((SME)) এবং ৩০% নারী, নতুন উদ্যোক্তা ও প্রতিবন্ধীদের জন্য নির্ধারণ করে দিতে হবে।
৫. নতুন উদ্যোক্তদের সহজে ঋণ পাওয়ার ব্যবস্থা করতে হবে।
৬. নারীদের ঋণ পাওয়ার সমান সুযোগ সৃষ্টি করতে হবে।
৭. গার্মেন্টস সহ প্রাতিষ্ঠানিক শ্রমিকদের নুন্যতম মজুরী ১০,০০০ টাকায় উন্নীত করতে হবে।
৮. ধর্ষণ, নারী নির্যাতন নগরের রাস্তায় প্রকাশ্যে খুন বা আক্রমনের সময় হাতে-নাতে ধৃতদের মোবাইল কোর্ট কর্তৃক তাৎক্ষনিকভাবে ডিটেনসন দিয়ে কারাগারে প্রেরণ করতে হবে। পরবর্তীতে আদালতের মাধ্যমে জামিন ও বিচার কাজ পরিচালনা করতে হবে।
৯. নিরাপদ সড়ক নিশ্চিত করতে দেশের প্রত্যেকটি পলিটেকনিক/ ইনস্টিটিউটে ড্রাইভিং ডিপার্টমেন্ট খুলতে হবে। প্রাইভেট ড্রাইভিং স্কুল পরিচালনা আয়কর মুক্ত এবং ব্যাংক ঋণের সুবিধা প্রদান করতে হবে।
১০. প্রাইভেট বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার শুণগত মান নিয়ন্ত্রণের জন্য UGC এর সক্ষমতা বৃদ্ধি করে, প্রত্যেকে প্রাইভেট বিশ্ববিদ্যালয়ের নিজস্ব ক্যাম্পাস, ল্যাব, সিলেবাস ও শিক্ষকের মান অনুযায়ী UGC কর্তৃক সেমিস্টার ফিস এর রেঞ্জ নির্ধারণ করে দিতে হবে।
১১. বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র-ছাত্রীদের জন্য Sponser Guarantee এর ভিত্তিতে শিক্ষা ঋণ চালু করতে হবে।
১২. চিকিৎসা ও ডায়াগনস্টিক ল্যাব প্রতিষ্ঠানগুলোর মান নিয়ন্ত্রণের জন্য স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের অধীনে প্রতিনিধিত্বমূলক আলাদা মান নিয়ন্ত্রণ সংস্থা প্রতিষ্ঠা করতে হবে।
১৩. নকল ওষুধ, খাদ্যে ভেজাল নিয়ন্ত্রণের জন্য স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় এর অধীনে “ভেজাল নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর” প্রতিষ্ঠা করতে হবে।
১৪. প্রতারণামূলক ব্যবসা, মিথ্যা তথ্য ও প্রতারণামূলক বিজ্ঞাপন নিয়ন্ত্রণের জন্য বাণিজ্যিক প্রতারণা দমন কমিশন গঠন করতে হবে।
১৫. মাদক বিরোধী টেকসই অভিযানের কৌশলপত্র প্রনয়ণ করে তা বাস্তবায়ন করতে হবে।
১৬. বিসিএস-সহ সরকারী বেসরকারী সব নিয়োগ পরীক্ষায় Dope Test চালু করতে হবে।
১৭. বিচার ব্যবস্থার বিকেন্দ্রিকরণ এর জন্য প্রত্যেক স্তরে আদালতের সংখ্যা বৃদ্ধি করে বিচারকার্য ত্বরান্বিত করতে হবে।
১৮. সমস্ত বিমান বন্দরে প্রবাসীদের হয়রানী রোধে সমস্ত প্রবাসী Wage Earner দের ১টি Wage Earner ID Card প্রদান করতে হবে, যাতে যে কোন হয়রানীর সময় যোগাযোগের জন্য
১. এয়ারর্পোট ম্যাজিস্ট্রেট ২. প্রবাস কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের সেল ৩. বার এসোসিয়েশনের সেল দেয়া থাকবে।
১৯. প্লাম্বার, ইলেক্ট্রিশিয়ান, মোটর মেকানিক, হোটেল ম্যানেজমেন্ট, ট্যুরিজম, ফ্যাশন ডিজাইনিং ইত্যাদির জন্য প্রত্যেক বিশ্ববিদ্যালয় কলেজে বিশেষায়িত ডিপার্টমেন্ট অথবা ইন্সটিটিউশন খুলে ৪ বছরের ডিপ্লোমার ব্যবস্থা করতে হবে। এদের বিদেশে যেতে সহযোগিতা করতে হবে ।
২০. পর্যাপ্ত প্রশিক্ষিত নার্স তৈরীর জন্য প্রত্যেক মেডিকেল কলেজে নার্সিং ডিপার্টমেন্ট অথবা ইনস্টিটিউট খুলতে হবে। এদের বিদেশে যেতে সহযোগিতা করতে হবে।
২১. বস্তিবাসীর জন্য গণ গৃহায়ন (Low Cost Housing) এর ব্যবস্থা করতে হবে।
২২. নিম্নবিত্তের জন্য সামাজিক গৃহায়ন বা কমিউনিটি হাউজিং প্রকল্প চালু করতে হবে।
২৩. চাকরির বয়স ৩৫- এ উন্নীত করতে হবে। শুধুমাত্র বয়সের কারণে যেন তরুণ তরুণী ভালো চাকুরী থেকে বঞ্চিত না হয়।
২৪. ক্রমান্বয়ে দুর্নীতি দমন কমিশনকে আরও শক্তিশালী করতে হবে।
২৫. উৎসব মুখর নির্বাচনের নামে খুন, ধর্ষণ মামলায় অভিযুক্ত ও ঋণ খেলাপীদের মনোনয়ন দিয়ে জন প্রতিনিধি বানানো বন্ধ করতে হবে।

(প্রেস বিজ্ঞপ্তি)

Leave a Reply

ক্যালেন্ডার এবং আর্কাইভ

December 2018
S M T W T F S
« Nov   Jan »
 1
2345678
9101112131415
16171819202122
23242526272829
3031  
%d bloggers like this: