চট্টগ্রাম, , বুধবার, ২৪ অক্টোবর ২০১৮

রংতুলিতে ব্যস্ত চট্টগ্রামের প্রতিমার কারিগররা

প্রকাশ: ২০১৮-১০-০৪ ১২:০০:৩২ || আপডেট: ২০১৮-১০-০৪ ১২:০০:৩২

কয়েকদিন পর শারদীয় দুর্গোৎসব। দিনরাত সমানে ব্যস্ত প্রতিমার কারিগররা। দম ফেলার ফুরসত নেই। কখনো মাটির প্রলেপ দিচ্ছেন। কোনোটায় রংতুলির ছোঁয়ায় অপরূপ হয়ে উঠছে দুর্গতিনাশিনী দেবীর অবয়ব।শুধু কি দুর্গা, শিব, অসুর, সিংহ, মহিষ, লক্ষ্মী, সরস্বতী, কার্তিক আর গণেশের মূর্তিও হচ্ছে।

বুধবার (৩ অক্টোবর) নগরের কোতোয়ালী থানাধীন সিআরবি রেলওয়ে হাসপাতাল কলোনির রাধাকৃষ্ণ নিতাইগৌর বন্ধুকুঞ্জ আশ্রমে এমন চিত্র দেখা গেছে।

আশ্রমে কথা হয় খুলনার বাগেরহাটের মোড়লগঞ্জের বাসিন্দা প্রতিমাশিল্পী রঞ্জন পালের (৬৫) সঙ্গে। তিনি বলেন, এবার ৩৩টি দুর্গাপ্রতিমা তৈরি করছি আমরা। এর মধ্যে ৬টি ছাড়া বাকিগুলো বায়না হয়ে গেছে। এখন চলছে শেষমুহূর্তের কাজ।

ছোটবেলা থেকে প্রতিমা তৈরিতে যুক্ত রঞ্জন পালের অধীনে কাজ করছেন সাতজন স্থায়ী কারিগর। তাদেরই একজন শুভ পাল (২৬)। এক যুগ ধরে কাজ করছেন এখানে। মাসে ৩০ হাজার টাকা পারিশ্রমিক পান।

“বাংলা প্রতিমাই গড়া হচ্ছে রাধাকৃষ্ণ নিতাইগৌর বন্ধুকুঞ্জ আশ্রমে ” />শুভ বলেন, কাজের চাপ বেশি থাকায় ছোট ভাই তনু পালকেও (২৮) নিয়ে এসেছে। মা-দুর্গার প্রতিমা তৈরি, রং লাগানোসহ সূক্ষ্ম কাজেই আগ্রহ তার। কৌতূহলী চোখে নিখুঁত হয়েছে কিনা সেদিকেই নজর তার।

রঞ্জন পাল বলেন, এবারের প্রতিমাগুলোর ভারী কাজ, মাটির কাজ প্রায় শেষ। এখন শুধু রঙের কাজ বাকি। আদি বাংলা, অজন্তা, সাগরিকা, মণিপুরি ঘরনার প্রতিমা তৈরি হয় দুর্গাপূজায়। কয়েক বছর ধরে মায়ের অবয়ব সঠিক হচ্ছে না এমন ধারণা থেকে চট্টগ্রামে ওরিয়েন্টাল দুর্গা প্রতিমা তৈরি হচ্ছে না। আমরা বাংলা প্রতিমাই গড়েছি। মাটির কাপড়, চটের কাপড় আর শাড়ি দিয়ে সাজিয়েছি মাকে। মায়ের অলংকারগুলোও মাটির তৈরি। কিছু শোলার (ককসিট) তৈরিও হয়।

তিনি জানান, এবার ৬০ হাজার টাকায় বেশ কিছু প্রতিমার বায়না করেছেন তারা। এ ছাড়া পাড়া-মহল্লা ও পূজামণ্ডপের সক্ষমতা অনুযায়ী অনেকে দামি প্রতিমা গড়ছেন। কেউ কেউ অভিজ্ঞ প্রতিমাশিল্পীদের মণ্ডপে এনে বড় বড় প্রতিমা তৈরি করছেন।

সিআরবি হাসপাতাল কলোনি ছাড়াও নগরের সদরঘাট কালীবাড়ী, হাজারী লেনসহ অন্যান্য এলাকায়ও ব্যস্ত সময় পার করছেন প্রতিমার কারিগররা।

Leave a Reply

ক্যালেন্ডার এবং আর্কাইভ

October 2018
S M T W T F S
« Sep    
 123456
78910111213
14151617181920
21222324252627
28293031  
%d bloggers like this: