চট্টগ্রাম, , শনিবার, ২০ অক্টোবর ২০১৮

হাটহাজারীতে স্কুল ছাত্রীকে ধর্ষণ

প্রকাশ: ২০১৮-০৭-১৯ ২২:০৬:২৭ || আপডেট: ২০১৮-০৭-১৯ ২২:০৬:২৭

হাটহাজারীতে ৮ম শ্রেণিতে পড়ুয়া এক স্কুল ছাত্রীকে(১৫) হাটহাজারী পৌরসভা ছাত্রদল নেতা অলি উল্লাহ পাবেল(২৪) কর্তৃক ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় ধর্ষণের শিকার স্কুল ছাত্রীর পিতা আজ পাবেল ও তার তিন সহযোগীর বিরুদ্ধে হাটাহাজারী মডেল থানায় একটি মামলা রুজু করেছে। পুলিশ এ ঘটনায় পাবেলের বড় ভাই স্থানীয় যুবদল কর্মী হাবিবুল্লাহ রুবেলকে (২৮) আটক করে করেছে। পাবেল ও রুবেল হাটহাজারী পৌর এলাকার পশ্চিম দেওয়ান নগর খেরু পাড়া ভোলা হাজী বাড়ির মৃত জাকির হোসেনের পুত্র। আটক যুবদল কর্মী রুবেলের বিরুদ্ধে হাটাহাজারী মডেল থানায় ভাঙচুরসহ একাধিক মামলা রয়েছে।

ধর্ষণের শিকার ছাত্রীটির পরিবার ও থানা পুলিশ জানায়, হাটহাজারীর একটি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে ৮ম শ্রেণী পড়ুয়া ছাত্রীটি গত ২৪জুন সকালে স্কুলে যাওয়ার পথে মূল আসামী পাবেল তাকে স্কুলে পৌঁছে দেওয়ার কথা বলে রিক্সায় তুলে নেয়। পরে তাকে হাটহাজারী পৌর এলাকার একটি ভবনের ৪র্থ তলার ফ্ল্যাটে নিয়ে অজ্ঞাতনামা দুই মহিলার সহযোগিতায় একাধিক বার ধর্ষণ করে। এসময় মেয়েটি জ্ঞান হারালে ধর্ষক পাবেল তার মোবাইলে আপত্তিজনক অবস্থায় ছবি ও ভিডিও ধারণ করে। ঘটনা কাউকে প্রকাশ করলে ছবি ও ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রচার করার ভয়ভীতি প্রদর্শন করে দুপুর নাগাদ একটি অটোরিক্সাযোগে ছাত্রীটিকে ঘরে পাঠিয়ে দেয়।

পরে শারীরিকভাবে অসুস্থ হলে ছাত্রীটি তার মা ও বড় বোনকে সে বিষয়টি প্রকাশ করে। এ নিয়ে ছাত্রীটির পরিবার সামাজিক মর্যাদার কথা ভেবে পাবেলের বড় ভাই রুবেলকে বিষয়টি অবহিত করলে রুবেল বিষয়টি কাউকে না জানানোর অনুরোধ জানায়। দ্রুত পাবেলের উপযুক্ত বিচার ও মিমাংসা করে দেবে বলে ছাত্রীর পরিবারকে আশ্বস্থ করে।

এভাবে আস্বাসের পর আশ্বাসের দ্বারা পাবেলের পরিবার সময় ক্ষেপন শুরু করে বলে ছাত্রীটির পিতা জানান। তিনি বলেন, গত ১৭ জুলাই আমি রুবেলের দোকানে আবারো বিচার চাইতে গেলে তারা দুই ভাই (রুবেল ও পাবেল) দোকান থেকে পালিয়ে যায়। একপর্যায়ে মুঠোফোনে রুবেল আমাকে অকথ্য ভাষায় গালমন্দ করে উল্টো আমদের প্রাণ নাশের হুমকি প্রদান করে। কোন উপায় না দেখে গতকাল বৃহস্পতিবার সকালে পাবেল, রুবেল ও অজ্ঞাতনামা দুই মহিলার বিরুদ্ধে থানায় মামলা রুজু করে বলে জানান তিনি৷

এদিকে উক্ত মামলা দায়েরের পর হাটহাজারী সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আবদুল্লাহ আল মাসুম, থানার ওসি বেলাল উদ্দিন জাহাঙ্গীর ও পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মো. জহির উদ্দিন সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে হাটহাজারী বাসস্টেশন এলাকা থেকে রুবেলকে আটক করে। তবে মূল আসামী ধর্ষক পাবেল ও অজ্ঞাতনামা দুই মহিলাকে আটক করা সম্ভব হয়নি। ডাক্তারি পরীক্ষা সম্পন্নের জন্য ছাত্রীটিকে চমেক হাসপাতালের ওয়ান স্টপ ক্রাইসিস সেন্টারে প্রেরণ করা হয়েছে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে ওসি বেলাল উদ্দিন জাহাঙ্গীর জানান, মামলা রুজুর পরপরই আমরা পাবেলের বড় ভাই রুবেলকে আটক করেছি। ধর্ষণে অভিযুক্ত  পাবেল ও অজ্ঞাতনামা দুই মহিলাকে আটকে পুলিশি অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

Leave a Reply

ক্যালেন্ডার এবং আর্কাইভ

July 2018
S M T W T F S
« Jun   Aug »
1234567
891011121314
15161718192021
22232425262728
293031  
%d bloggers like this: