চট্টগ্রাম, , শুক্রবার, ২২ জুন ২০১৮

জার্সি-পতাকায় ছেয়ে গেছে বন্দরনগরীর পোশাকের মার্কেট

প্রকাশ: ২০১৮-০৫-১৮ ১২:১০:০৪ || আপডেট: ২০১৮-০৫-১৮ ১২:১০:০৪

যুদ্ধে বাকি অার ২৭দিন। বন্দর নগরীতে বিশ্বকাপের রঙের ছোঁয়া লেগেছে পোশাকেও। সব বয়সের ফুটবলপ্রেমীরা প্রিয় দল ও খেলোয়াড়ের জার্সি কিনতে ভিড় করছেন দোকানগুলোতে।

বিশ্বকাপ ফুটবলের আমেজ শুধু মাঠেই আটকে নেই, সুদূর রাশিয়া ছাপিয়ে তা ছড়িয়ে পড়েছে বন্দরনগরী চট্টগ্রামের মার্কেটগুলোতেও। ফুটপাত থেকে শুরু করে ছোট-বড় সব বিপণিবিতান ছেয়ে গেছে প্রিয় দলের জার্সিতে। সঙ্গে রয়েছে পতাকা ও হাতের ব্যান্ডসহ বাহারি সব পণ্য। ক্রেতাদের সরব উপস্থিতিতে জমে উঠেছে বেচাকেনা। প্রায় সব জায়গায় ভিড় ঠেলে শখের পণ্য কেনাকাটা করছেন নানান বয়সের ফুটবলপ্রেমীরা। এতে খুশির ঝিলিক দেখা গেছে বিশ্বকাপ উৎসবকে সামনে রেখে জার্সি ও পতাকা ব্যবসায় নামা মৌসুমি ব্যবসায়ীদের চোখে।

চার বছর পর ফুটবল উন্মাদনার প্রতীক্ষার সেই ক্ষণ শেষ হতে বাকি অারো ২৭ দিন। অনেকেই প্রিয় দল মাঠে খেলতে নামার আগে তাই নিজেদের প্রস্তুতিও শেষ করে ফেলা চাই। এ জন্য এখনও যাদের জার্সি কেনা হয়নি তারা ভিড় করছেন মার্কেটগুলোতে। সাধ ও সাধ্যের মিল ঘটাতে কেউবা যাচ্ছেন অভিজাত  বিপণিবিতানে, আবার কেউ ফুটপাতে।
ফুটবলের মহা এ আয়োজন শুরু হওয়ার আগেই বন্দরনগরীতে পোশাকের পাইকারি ও খুচরা মার্কেটগুলোতে বিশ্বকাপের ডামাডোল জেঁকে বসেছে। জার্সি ও পতাকা কেনাবেচার ধুম পড়েছে সব ধরনের মার্কেট ও দোকানে। ফুটপাতেও চলছে জার্সি বিক্রির হাঁকডাক।

কথা বলে জানা গেছে, বিশ্বকাপ ফুটবলকে সামনে রেখে বন্দরনগরীর মার্কেট গুলোতে মে মাসে প্রায় ৫০ লাখ টাকার জার্সিসহ বিভিন্ন পণ্য বেচাকেনা হয়েছে।

বিক্রেতারা জানান, অাশা করি এইবছর অন্যবারের চেয়ে জার্সি বেশি বিক্রি হবে ।

শুধু জার্সিই নয়, বিক্রি হচ্ছে নানান দেশের পতাকা। এসব পতাকা তৈরির জন্য কাজের ফুরসত নেই পোশাকের কারিগর দর্জির দোকানগুলোতে। চট্টগ্রামে সব এলাকায় কম বেশি সব দর্জি পতাকা তৈরিতে ব্যস্ত হয়ে পড়েছেন। জার্সি ও পতাকার হঠাৎ এ চাহিদায় মৌসুমি ব্যবসা করছেন কয়েক হাজার লোক।
শুধু মার্কেটগুলোতে নয়, বিশ্বকাপের ছোঁয়া লেগেছে ফ্যাশন হাউসগুলোতেও। ফ্যাশন হাউসের নানান পোশাকে প্রিয় খেলোয়াড় ও দলের নকশা যোগ হয়েছে।
ডিজাইনার সায়েম হাসান বলেন, ক্রেতাদের মধ্যে বিশ্বকাপের নকশার আদলে তৈরি পোশাক জনপ্রিয়তা পাচ্ছে। এ কারণে পছন্দসই বিভিন্ন দলের জার্সি তৈরি করা হচ্ছে। বিশ্বকাপে অংশ নেওয়া দলের নাম কিংবা মনোগ্রাম ব্যবহার করা হচ্ছে টি-শার্টে। অনেক টি-শার্টে আবার তারকা খেলোয়াড়ের নাম ও ছবি ছাপা হচ্ছে। এসব টি-শার্টের মানভেদে দাম নির্ভর করছে। বিভিন্ন ফ্যাশন হাউসের গোল গলা টি-শার্ট ৪০০ থেকে ৬০০ টাকা এবং কলার টি-শার্ট ৫৫০ থেকে এক হাজার টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

Leave a Reply

ক্যালেন্ডার এবং আর্কাইভ

May 2018
S M T W T F S
« Apr   Jun »
 12345
6789101112
13141516171819
20212223242526
2728293031  
%d bloggers like this: