চট্টগ্রাম, , বৃহস্পতিবার, ২৪ মে ২০১৮

রাবিতে শিক্ষার্থীকে ছুরিকাঘাতের ঘটনায় ছাত্রলীগ কর্মীর বিরুদ্ধে হত্যাচেষ্টা মামলা

প্রকাশ: ২০১৮-০৫-১৭ ১৮:৪৩:২৪ || আপডেট: ২০১৮-০৫-১৭ ১৮:৪৩:২৪

রাবি প্রতিনিধি : বান্ধবীকে উত্যক্তের প্রতিবাদ করায় রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে (রাবি) ছুরিকাঘাতের ঘটনায় ছাত্রলীগের এক কর্মীর বিরুদ্ধে হত্যাচেষ্টা মামলা দায়ের করা হয়েছে। আজ বৃহস্পতিবার চিকিৎসাধীন অবস্থায় আহত সাইফুল ইসলাম হৃদয় নগরীর মতিহার থানায় মামলাটি দায়ের করেন।

মতিহার থানার ভারপ্রাপ্ত ওসি মাহবুব আলম জানান, মামলায় হামজাসহ আরও দুইজনকে অজ্ঞাত আসামি করা হয়েছে। পুলিশ হামজাকে জিজ্ঞাসাবাদ করে বেশ কিছু তথ্য পেয়েছে। অন্য দুইজনকে চিহ্নিত করে গ্রেফতার করতে পুলিশ তৎপর রয়েছে।

গতকাল বুধবার রাতে ছুরিকাঘাতে আহত হৃদয়কে অস্ত্রোপচার শেষে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে আইসিইউ-তে রাখা হয়েছে। তিনি আপাতত শঙ্কামুক্ত বলে জানিয়েছেন চিকিৎসকরা। তবে অতিরিক্ত রক্তক্ষরণের কারণে তাকে আইসিইউ-তে রেখে পরিচর্যা করা হচ্ছে।

জানা যায়, গতকাল বুধবার সন্ধ্যায় দুই বন্ধু ও এক বান্ধবীর সঙ্গে সাইফুল ইসলাম হৃদয় দ্বিতীয় বিজ্ঞান ভবনের সামনে গল্প করছিলেন। এসময় পাশ দিয়ে যাওয়া-আসার সময় ছাত্রলীগ কর্মী হামজা ও অপর দুইজন তার বান্ধবীকে উত্যক্ত করে। এতে তাদের মধ্যে কথা কাটাকাটি হয়। পরে বান্ধবীকে হলে পৌঁছে দিয়ে নিজের হলে ফিরছিলেন তিনি। বিশ্ববিদ্যালয় স্টেডিয়াম সংলগ্ন এলাকায় পৌঁছালে হৃদয়ের পথরোধ করে হামজাসহ তিনজন। একপর্যায়ে হামজা হৃদয়ের পেটের নিচের অংশে ধারালো অস্ত্র দিয়ে আঘাত করে পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে। তবে আশেপাশে থাকা শিক্ষার্থীরা ধাওয়া করে হামজাকে ধরতে পারলেও অন্য দুই জন পালিয়ে যায়।

জানতে চাইলে রাবি ছাত্রলীগের সভাপতি গোলাম কিবরিয়া দাবি করেন, ‘হামজা ছাত্রলীগের কর্মী এটা সঠিক নয়। সে হয়তো আগ্রহী হয়ে ছাত্রলীগের বিভিন্ন কর্মসূচিতে অংশ নেয়।’

নগরীর মতিহার থানার ভারপ্রাপ্ত ওসি মাহবুব আলম বলেন, হত্যাচেষ্টা মামলায় হামজা নামে একজনকে গ্রেফতার দেখিয়ে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে। তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করে কিছু তথ্য পাওয়া গেছে। ঘটনায় অন্য কেউ জড়িত থাকলে তাদেরকেও চিহ্নিত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক মো. লুৎফর রহমান বলেন, সহকারী প্রক্টর হাসানুর রহমানকে প্রধান করে ৫ সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। কমিটি প্রতিবেদন দিলে জড়িতদের বিরুদ্ধে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ শাস্তিমূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।

Leave a Reply